আপনি যদি হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের টিকা না নিয়ে থাকেন, তাহলে এখনই রক্ত পরীক্ষা করে টিকা নেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিন (যারা ইতোমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের এই স্পেসিফিক টিকা দেয়া হয়না। তাদের জন্য চিকিৎসকরা অন্য কোনো ব্যবস্থাপত্র দেন)। এটা কিন্তু খুবই মারাত্মক এবং সংক্রামক ভাইরাস যা কোনো কোনো ক্ষেত্রে লিভার ক্যান্সার ঘটায়। তবে আক্রান্তরা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চললে সুস্থ জীবন যাপন করতে পারবেন আশা করা যায়।

অনেকেই ভয়ে রক্ত পরীক্ষা করেননা এবং টিকা দিতে যাননা। আলহামদুলিল্লাহ, আমার অভিজ্ঞতা হচ্ছে, টেস্টের জন্য যখন ব্লাড স্যাম্পল নেয়া হয় তখন আসলে কোনো ব্যথা অনুভব হয়না। আর টিকা দেয়ার সময় পিঁপড়ার কামড়ের মত একটু অনুভূতি হয়। এটা কোনো ব্যাপারই না। ভয়ের কিছু নেই। একটি টিকার দাম ৫০০ টাকার মত। একজনের সাধারণত ৪টি টিকা লাগতে পারে যা চিকিৎসক বলে দেবেন।
আপনার ব্লাড টেস্টে যদি এই ভাইরাস ধরা পড়ে তাহলে আপনাকে এই টিকা দেয়া হবেনা। তবে ঘাবড়ে না গিয়ে দ্রুত বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সাথে কথা বলুন। তিনি অন্য কোনো ব্যবস্থাপত্র দেবেন।
একদিন দেরি করলেই বড্ড দেরি হয়ে যেতে পারে। তাই দ্রুত রক্ত পরীক্ষা করে হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের আক্রমণ থেকে নিরাপদ থাকার চেষ্টা করুন। এটা মোটেই হেলাফেলা করার মত বিষয় না। নিজে এবং নিজের আশেপাশের সবাইকে সচেতন করুন। এটা কিন্তু একজনের দেহ থেকে অন্যজনের মধ্যেও ছড়ায়। সুতরাং বি কেয়ারফুল!
Next
Newer Post
Previous
This is the last post.

1 Comments:

 
Top